অ্যাসাইনমেন্ট লিখতে হয় যেভাবে ! 

অ্যাসাইনমেন্ট লিখতে হয় যেভাবে, অ্যাসাইনমেন্ট শিক্ষা জীবনের খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বর্তমান করোনা   মহামারিতে প্রতিটা শিক্ষার্থীদের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু একটু খোঁজ নিলেয় দেখা যায় অনেকেই জানেন না অ্যাসাই-নমেন্ট কি এবং অ্যাসাইনমেন্ট লেখার নিয়ম কি?

অ্যাসাইনমেন্ট যেভাবে লিখতে হয়! 

 

 

অ্যাসাইনমেন্ট লিখতে হয় যেভাবে !

আজকাল শিক্ষার্থীরা অ্যাসাইন-মেন্ট অলিগলির দোকান থেকে সংগ্রহ করে। শিক্ষার্থীদের শেখা উচিত অ্যাসাইন-মেন্ট কাকে বলে এবং কিভাবে অ্যাসাইন-মেন্ট লেখা যায়।

অ্যাসাইনমেন্ট কি?

অ্যাসাইনমেন্ট হলো শিক্ষার্থীদের কাজ যা মূলত পড়াশোনার একটি অংশ। এই বিষয়টির সাথে লিখিত কাজ এবং ব্যবহারিক কাজ দুই জড়িত। শিক্ষার্থীদেরেএই কাজটি বাসা থেকে করে আনতে হয়।

অ্যাসাইনমেন্ট লেখার প্রয়োজনীয় সামগ্রী :

১।একটি স্কেল

২। একটি পেন্সিল

৩। একটি কালো বলপয়েন্ট কলম

৪। A4 সাইজের কিছু কাগজ নাও

 

অ্যাসাইনমেন্ট যেভাবে লিখতে হয়! 

 

অ্যাসাইনমেন্ট লেখার নিয়মঃ

অ্যাসাইন-মেন্ট এর প্রধান অংশ হচ্ছে কভার পেজ। কথায় আছে আগে দর্শণধারী পরে গুণবিচারী। কভার পেজ অ্যাসাইন-মেন্ট এর দর্শন তুলে ধরে। কভার পেজ কিভাবে পূরণ করবেঃ

কভার পেজের ৩টা অংশ :

১। প্রথম অংশ শিক্ষার্থী পূরণ করবে

২। দ্বিতীয় অংশ মূল্যায়নকারী শিক্ষক পূরণ করবে

৩। তৃতীয় অংশ প্রতিষ্ঠান পূরণ করবে

 

অ্যাসাইনমেন্ট যেভাবে লিখতে হয়! 

 

যে অংশ শিক্ষার্থীরা পূরণ করবে তা নিচে বলা হলো:

  •  ক্রমিক নম্বর : যে এ্যাসাইনমেন্টেটি তুমি করবে, ঔ বিষয়ের প্রথম ঘরেই ক্রমিক নম্বর দেওয়া আছে। যে নম্বরটি দেওয়া আছে তুমি সেই ক্রমিক নম্বরটি লিখে ফেলো।
  • শিরোনামঃ যে বিষয়টির উপরে তুমি এ্যাসাইনমেন্ট লিখছো তা শিরোনামে দিতে হবে। যদি “বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা” শুরু করো, তাহলে শিরোনাম হতে পারে, ‘ ইতিহাস পরিচিতি ‘। তাহলে তোমার শিরোনামে এটি লিখতে হবে।
  • বিষয় কোড: অ্যাসাইন-মেন্ট এবং রেজিস্ট্রেশন কার্ডে উক্ত বিষয় কোড লেখা আছে। কার্ড দেখে বিষয় কোড যা দেওয়া আছে তা লিখবে।
  • বিষয়ের নাম : “বাংলাদেশের ইতিহাস ও বিশ্বসভ্যতা
  • শিক্ষাবোর্ডের নাম : এখানে শুধু জেলার নাম ইংরেজিতে লিখবে না । যেমন (Dhaka / Jashore / Rajsahi)।বোর্ডসহ লিখবে (Dhaka Board/ Jashore Board / Rajsahi Board)। 
  • রেজিষ্ট্রেশন নম্বরঃ নিজের রেজিষ্ট্রেশন কার্ড দেখে সতর্কতার সাথে রেজিস্ট্রেশন নম্বর লিখবে। ইংরেজীতেই লিখবে আর যেনো কোনো প্রকার ভুল না হয়। 
  •  শিক্ষার্থীর নাম : রেজিস্ট্রেশন কার্ডে তোমার নাম দেওয়া আছে। বানান দেখে নিজের নাম ইংরেজীতে লিখবে। 
  • পিতার নাম : রেজিস্ট্রেশন কার্ড দেখে পিতার নাম ইংরেজীতে লিখবে। কার্ডে বানান যেটা লেখা আছে ঠিক সেই বানানটায় লিখবে। 
  • মাতার নাম : মাতার নামের ক্ষেত্রেও একই হবে।

শেষ হয়ে গেল তোমার কাভার পেইজের কাজ। তোমার আর কিছু লেখার প্রয়োজন নায়।

 

অ্যাসাইনমেন্ট যেভাবে লিখতে হয়! 

 

আরও দেখুন:

চাকরির টিপস : হন্যে হয়ে খোঁজার আগের প্রস্তুতি

কিভাবে এ্যাসাইনমেন্ট লেখা শুরু করবোঃ 

  • এ্যাসাইনমেন্ট  A4 সাইজের কাগজে লিখবে। কাগজের একপাশে লিখবে,উভয় পাশে কখনোই লিখবা না
  • লেখা স্পষ্ট হতে হবে যাতে শিক্ষকের লেখা বুঝতে সমস্যা না হয়।
  • লেখার ভিতরে কোন কাটা-কাটি না হয় ।
  • প্রশ্নের সিরিয়াল  ঠিক লাখতে হবে (১,২,৩…../ক,খ,গ….এ ভাবে লিখবে) 
  • আদর্শ এসাইনমেন্ট বিশেষ পলি প্লাস্টিক মলাট দ্বারা বাধাই করতে হয়। (তবে ছাত্রছাত্রীদের এই বিষয়টি বাধ্যতামূলক নয়, পরে নির্দেশনা দেওয়া হবে এই বিষয়ে)
  • এসাইনমেন্ট লেখার পেজে যথেষ্ট মার্জিন রাখতে হবে।
  • এসাইনমেন্ট পেজের শুধু ডান দিকে লিখতে হয়।
  • একক বিষয়ে এসাইনমেন্ট ছোট হলেও ৮ পেজের বেশি লিখতে হয়। আর একটি আদর্শ এসাইনমেন্ট ২০ থেকে ৫০ পেজের হতে পারে। 
  • তবে ছাত্রছাত্রীদের সিলেবাস নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। অযথা বড় করা ঠিক নয় তবে বিভিন্ন প্রশ্ন টপিক বড় ব্যাখ্যায় লিখতে হবে। এক্ষেত্রে মুখস্থ বা বইতে যা আছে শুধু তা না লিখে সৃজনশীলতার ব্যবহার করা উচিত।
  • এসাইনমেন্ট সাধারণ অক্ষর, স্পষ্ট ও সব অক্ষরের যথাযথ সাইজ রাখতে হবে। এখানে পেচানো হাতের লেখা দেওয়া উচিত না।
  • এসাইনমেন্ট এর তথ্যের উৎস যেকোন কিছু হতে পারে। যেমনঃ বই, গল্পের বই, উপন্যাস, কাব্যগ্রন্থ, নিউজ পেপার, ইন্টারনেট ইত্যাদি। তবে সেখান থেকে  হুবহু কপি করা যাবেনা। উৎস পড়ে যা বুঝতে পারবে তা লিখবে।
  • “ডাবল কোটেশন” ব্যবহার করতে হবে উপদেশ মূলক বাণী কোন ব্যক্তি বা লেখকের কথা লেখার সময়।
  • বড় বড় ক্ষেত্রে এসাইনমেন্ট হাতে লিখে মডেল তৈরি করতে হয়। পরে সেটি প্রিন্ট করে বাঁধাই করে জমা দিতে হয়। কিন্তু এখানে যেহেতু ছাত্রছাত্রীদের পরিক্ষার বিকল্প তাই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে, ছাত্র ছাত্রীদের নিজ হাতে কালো বলপয়েন্ট দিয়া এসাইনমেন্ট  লিখতে হবে।কোন ভাবে প্রিন্ট এসাইনমেন্ট গ্রহণযোগ্য হবে না।
  • এসাইনমেন্ট লেখা শেষে একটি ফাকা সাদা পেজ থাকবে।

বি:দ্রঃ কারও লেখা কোন ভাবেই কপি করা যাবে না। 

আশা করি এসাইনমেন্ট লেখার টিপস গুলো তোমাদের সাহায্য করবে। তোমরা সঠিক নিয়ম মেনে এসাইনমেন্ট লিখে ফেলতে পারবে।

অ্যাসাইনমেন্ট সম্পর্কে আরও জানতে:

এশোপড়ি বিডি: অ্যাসাইনমেন্ট লেখার নিয়ম-এসাইনমেন্ট কিভাবে লিখতে হয়

গুরুকুল অনলাইন লার্নিং এর গণিত এসাইনমেন্ট কিভাবে করবেন তার ক্লাস:

 

এডুকেশন নিউজ সাইটটি ব্যবহার করায় আপনাকে ধন্যবাদ। আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে চাইলে “যোগাযোগ” আর্টিকেলটি দেখুন, যোগাযোগের বিস্তারিত দেয়া আছে।